• শপথ নিল পাকিস্তানের নতুন মন্ত্রিসভা

    পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ৩৪ সদস্যের মন্ত্রিসভা প্রথম ধাপে শপথগ্রহণ করেছে।

    মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) আইওয়ান-ই-সদরে এক অনুষ্ঠানে তারা শপথগ্রহণ করেন।

    এদিন দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান সিনেট চেয়ারম্যান সাদিক সানজরানি।

    সোমবার ফেডারেল মন্ত্রিসভার শপথগ্রহণের কথা ছিল। কিন্তু প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি ফেডারেল মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথ পড়াতে অপারগতা প্রকাশ করেন। ফলে সরকারকে শপথগ্রহণ স্থগিত করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

    সোমবার দিবাগত রাতে প্রথম ধাপে শপথ নিতে যাওয়া ফেডারেল মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপদেষ্টাদের তালিকা প্রকাশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

    তালিকায় ৩০ জন ফেডারেল মন্ত্রী, চারজন প্রতিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর তিনজন উপদেষ্টার নাম রয়েছে।

    মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের তালিকা অনুযায়ী, ক্ষমতাসীন জোটের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জাতীয় পরিষদে নেতৃত্ব দেবে পিএমএল-এন। দলটির ১২ জন ফেডারেল মন্ত্রী, দুইজন প্রতিমন্ত্রী এবং দুইজন উপদেষ্টা থাকবেন।

    এছাড়া পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) ৯ জন ফেডারেল মন্ত্রী, দুইজন প্রতিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টা থাকবেন।

    মন্ত্রিসভার বাকি সদস্যদের মধ্যে জেইউআইএফ থেকে চারজন, এমকিউএম-পাকিস্তান থেকে দুজন, জেডব্লিউপি, বিএপি ও পিএমএল-কিউ থেকে একজন করে মন্ত্রী হবেন।

    সূত্র : জিও নিউজ


  • রাউন্ড পর্ব শেষে চূড়ান্ত ডিপিএলে সুপার লিগের ৬ দল

    শেষ হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের (ডিপিএল) রবিন রাউন্ড পর্ব। এই পর্বে ১১টি দল ১০টি করে ম্যাচ খেলেছে। সুপার লিগ নিশ্চিত করেছে ৬টি দল। দলগুলো যথাক্রমে- শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব, আবাহনী লিমিটেড, লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ, প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব, রূপগঞ্জ টাইগার্স ক্রিকেট ক্লাব ও গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স।

    পয়েন্ট টেবিলে এক নম্বরে থাকা শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ১০ ম্যাচে ৯ জয়ে পয়েন্ট পেয়েছে ১৮টি। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে থাকা আবাহনীর জয় ১০ ম্যাচে ৭টি। ৭ ম্যাচ জিতে সমান ১৪ পয়েন্ট থাকলেও নেট রান রেটে পিছিয়ে থাকায় তিন নম্বরে জায়গা হয়েছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জের।

    প্রাইম ব্যাংকের জয় ৬টি। রূপগঞ্জ টাইগার্স ক্রিকেট ক্লাব আর গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স পেয়েছে সমান ৫টি করে জয়ের পেয়ে নেট রান রেটে এগিয়ে থাকায় মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব ও শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে পেছনে ফেলে জায়গা করে নিয়েছে সুপার লিগে।

    এদিকে রেলিগেশন লিগে খেলবে পয়েন্ট টেবিলের শেষ তিনটি দল- ব্রাদার্স ইউনিয়ন, সিটি ক্লাব ও খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতি।


  • ইউক্রেনে ১ হাজার ৯৮২ বেসামরিক লোক নিহত : জাতিসংঘ

    জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনারের কার্যালয় (ওএইচসিএইচআর) জানিয়েছে, রাশিয়ার আগ্রাসনে ইউক্রেনে এক হাজার ৯৮২ জন বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছে। আর এই আগ্রাসনে আহত হয়েছে দুই হাজার ৬৫১ জন আহত হয়েছে। ওএইচসিএইচআরের তথ্যের বরাতে বিবিসির প্রতিবেদনে এমনটি জানানো হয়েছে।

    ২৪ ফেব্রুয়ারি আক্রমণের পর ইউক্রেনে গত ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত নিহত এক হাজার ৯৮২ জনের মধ্যে শিশু রয়েছে ১৬২ জন।

    ওএইচসিএইচআর আরও জানায়, হামলায় এ পর্যন্ত আহত হয়েছেন দুই হাজার ৬৫১ জন। আহতদের মধ্যে শিশু রয়েছে ২৫৬ জন। তাদের বেশিরভাগই গোলার আঘাত ও বিমান হামলায় আহত হয়।

    জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনার মিশেল বেচলেট এর আগে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের কাছে, বুচা শহরে বেসামরিক লোকদের নিহত হওয়ার খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

    এ সময় তিনি রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের বিষয়টিও তুলে ধরে প্রমাণ সংরক্ষণের আহ্বান জানান।


  • উন্নয়নের সকল সূচকে বাংলাদেশের অগ্রগতি হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বর্তমান সরকার গৃহীত মেগা-প্রকল্পগুলো দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। গত সাড়ে তের বছরে বাংলাদেশ উন্নয়নের সকল সূচকে অভূতপূর্ব অগ্রগতি সাধন করেছে।

    তিনি বলেন, আমরা সফলভাবে করোনা মহামারী মোকাবেলা করেছি। আমাদের মেগা-প্রকল্পগুলো দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা দারিদ্র্যের হার ২০.৫ শতাংশের নিচে নামিয়ে এনেছি। শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ সুবিধা দিচ্ছি। ইতোমধ্যেই বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করেছি।’

    আগামীকাল রোববার ঐতিহাসিক ‘মুজিবনগর দিবস’ উপলক্ষ্যে আজ শনিবার দেয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

    শেখ হাসিনা বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমরা দ্বিতীয় প্রেক্ষিত পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়ন শুরু করেছি। আমরা বাংলাদেশ ব-দ্বীপ পরিকল্পনা-২১০০ প্রণয়ন করেছি এবং এর বাস্তবায়নও শুরু করেছি।

    ঐতিহাসিক ‘মুজিবনগর দিবস’ বাঙালি জাতির জীবনে এক অবিস্মরণীয় দিন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৭১ সালের এই দিনে তৎকালীন মেহেরপুর মহকুমার বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকার শপথ গ্রহণ করে।

    তিনি বলেন, ‘৭০-এর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জাতীয় এবং প্রাদেশিক পরিষদে সংরক্ষিত মহিলা আসনসহ যথাক্রমে ১৬৭টি এবং ২৯৮টি আসনে জয়লাভ করে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭১ সালের ৩ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের নির্বাচিত সকল সংসদ সদস্য রেসকোর্স ময়দানে ৬-দফার ভিত্তিতে শাসনতন্ত্র প্রণয়নের শপথ গ্রহণ করেন। ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি’ সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন হয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এ সময় ‘আমার দেশ তোমার দেশ, বাংলাদেশ, বাংলাদেশ’ স্লোগান দেন। তিনি ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণে দীর্ঘ ২৩ বছরের শাসন-শোষণ থেকে মুক্তির লক্ষ্যে সুনির্দিষ্ট রূপরেখা প্রদান করেন।

    শেখ হাসিনা বলেন, ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে শতাধিক দেশী-বিদেশী সাংবাদিকের উপস্থিতিতে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার শপথ গ্রহণ করে। পাশাপাশি এদিন স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র অনুমোদিত হয়। মেহেরপুর হয়ে উঠে অস্থায়ী সরকারের রাজধানী এবং সেদিন থেকে এ স্থানটি ‘মুজিবনগর’ নামে পরিচিতি লাভ করে।

    তিনি বলেন, মুজিবনগর সরকারের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হওয়ার দু’ঘণ্টার মধ্যেই পাকিস্তান বিমান বাহিনী বোমাবর্ষণ ও আক্রমণ চালিয়ে মেহেরপুর দখল করে। ফলে, অস্থায়ী সরকার ভারতে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয় এবং সেখান থেকে কার্যক্রম চালাতে থাকে। নয় মাস সশস্ত্র সংগ্রামের মাধ্যমে ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয় এবং স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

    প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু মানুষের মৌলিক অধিকারসমূহকে প্রাধান্য দিয়ে মাত্র নয় মাসেই একটি সংবিধান প্রণয়ন করেছিলেন। সাড়ে ৩ বছরের মাধ্যেই একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে স্বল্পোন্নত দেশে রূপান্তরিত করেছিলেন। দুর্ভাগ্য, ৭৫-এর ১৫ আগস্ট স্বাধীনতাবিরোধীরা তাকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যা করে। ৩র নভেম্বর জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকেও নৃশংসভাবে হত্যা করে। এরপর দীর্ঘ ২১ বছর বাংলাদেশে গণতন্ত্র ছিল না।

    শেখ হাসিনা স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন এবং কৃতজ্ঞ চিত্তে মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্বদানকারী জাতীয় চার নেতা- সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দীন আহমদ, মোহাম্মদ মনসুর আলী এবং আবুল হাসনাত মোহাম্মদ কামারুজ্জামানকে স্মরণ করেন। এছাড়াও বাণীতে তিনি মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহিদ এবং ২ লাখ নির্যাতিত মা-বোনদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান এবং দিবসটি উপলক্ষ্যে গৃহীত সকল কর্মসূচির সর্বাঙ্গীণ সাফল্য কামনা করেন।
    সূত্র : বাসস


  • ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে কোনো সহযোগিতা পাইনি : অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস

    নিউমার্কেট এলাকা যেন রণক্ষেত্র। থেমে থেমে সকাল থেকে ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী ও নিউমার্কেট এলাকার ব্যবসায়ীদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ চলছে। প্রায় ৩ ঘণ্টা ধরে সংঘর্ষ চললেলও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো উপস্থিতি লক্ষ করা যায়নি। একপর্যায়ে বিক্ষুব্ধরা চন্দ্রিমা মার্কেটে আগুন ধরিয়ে দিলে পরিস্থিতি ভয়বাহ রূপ নেয়।

    প্রায় তিন ঘণ্টা পর সংঘর্ষ স্থলে ছুটে আসেন ঢাকা কলেজের কয়েকজন শিক্ষক। তারা পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেন। ঢাকা কলেজের শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ড. মো. আবদুল কুদ্দুস শিকদার বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আমরা সকাল থেকে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলার চেষ্টা করি। তাদের পক্ষ থেকে কোনো সগযোগিতা পাইনি। আমরা আমাদের ছাত্রদের ফিরিয়ে নিয়ে গেলেও অপর পক্ষ থেকে ইটপাটকেল থামছেই না।

    এর আগে সোমবার (১৮ এপ্রিল) দিবাগত রাতে ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী ও ব্যবসায়ীদের সংঘর্ষের জেরে মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) সকাল থেকে নিউমার্কেট এলাকা অবরোধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা। এতে নিউমার্কেটের সকল দোকানপাট বন্ধের সঙ্গে সড়কের উভয় পাশে যানবাহন চলাচলও বন্ধ হয়ে গেছে।

    সোমবার (১৮ এপ্রিল) রাত ১২টার দিকে এই সংঘর্ষ শুরু হয়। উত্তেজনা চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। এ ঘটনার জের ধরে নিউমার্কেট খুলতে না দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা।

    এদিকে ঢাকা কলেজের আজ মঙ্গলবারের সব ক্লাস ও পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে কলেজের সব শিক্ষককে সকাল ১০টায় ক্যাম্পাসে উপস্থিত থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ এ অনুরোধ জানিয়েছেন।

    এর আগে সংঘর্ষের শুরুর দিকে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা শুরু করে। এ সময় উভয় পক্ষকে শান্ত করার চেষ্টা ব্যর্থ হলে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার শেল ছোড়ে পুলিশ। এক পর্যায়ে সংঘর্ষ থামলেও নিউমার্কেট এলাকাজুড়ে রাতভর উত্তেজনা বিরাজ করে।

    রমনা জোনের ডিসি সাজ্জাদুর রহমান বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি ঢাকা কলেজের কয়েকজন ছাত্র নিউমার্কেটে যায়। যে দোকানে তারা গিয়েছিল সেই দোকানের কর্মচারীর সঙ্গে তাদের তর্ক হয়। শিক্ষার্থীদের ভাষ্যমতে, সেই কর্মচারী তাদের গায়ে হাত তুলে। পরে শিক্ষার্থীরা হলে ফিরে প্রতিশোধ নেয়ার জন্য দলবল নিয়ে নিউমার্কেট এলাকায় আসে। এ সময় তারা প্রথমে নিউ মার্কেটের ৪ নং গেইট ও পরে ২ নং গেইট ভেঙে ভেতরে ঢুকার চেষ্টা করে। দুই নং গেইট ভেঙে ভেতরে কয়েকজন ঢুকেও পড়ে। পরে আমরা তাদেরকে বুঝিয়ে হল ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করি।

    মার্কেট খুলতে না দেয়ার দাবির বিষয়ে ডিসি সাজ্জাদ রহমান বলেন, ‘এটা রমজান মাস। রমজানের শেষ দশক চলে এসেছে। এখন দোকানপাট বন্ধ রাখার দাবি কোনো বিবেচনা প্রসূত কাজ নয়। ঢাকা কলেজের শিক্ষকদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তারা বলেছেন, তারা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলবেন। যদি কোনো সমঝোতার প্রয়োজন হয় তাহলে সেটি তারা করবেন। মার্কেটের সাথে দ্বন্দ্ব নিরসনের উদ্যোগ নেবেন। কিন্তু মার্কেট খুলতে না দেয়ার বিষয়টি যথাযথ সিদ্ধান্ত নয়।


  • শপথ নিল পাকিস্তানের নতুন মন্ত্রিসভা

    পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের ৩৪ সদস্যের মন্ত্রিসভা প্রথম ধাপে শপথগ্রহণ করেছে।

    মঙ্গলবার (১৮ এপ্রিল) আইওয়ান-ই-সদরে এক অনুষ্ঠানে তারা শপথগ্রহণ করেন।

    এদিন দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান সিনেট চেয়ারম্যান সাদিক সানজরানি।

    সোমবার ফেডারেল মন্ত্রিসভার শপথগ্রহণের কথা ছিল। কিন্তু প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি ফেডারেল মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথ পড়াতে অপারগতা প্রকাশ করেন। ফলে সরকারকে শপথগ্রহণ স্থগিত করা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না।

    সোমবার দিবাগত রাতে প্রথম ধাপে শপথ নিতে যাওয়া ফেডারেল মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপদেষ্টাদের তালিকা প্রকাশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

    তালিকায় ৩০ জন ফেডারেল মন্ত্রী, চারজন প্রতিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর তিনজন উপদেষ্টার নাম রয়েছে।

    মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের তালিকা অনুযায়ী, ক্ষমতাসীন জোটের মধ্যে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জাতীয় পরিষদে নেতৃত্ব দেবে পিএমএল-এন। দলটির ১২ জন ফেডারেল মন্ত্রী, দুইজন প্রতিমন্ত্রী এবং দুইজন উপদেষ্টা থাকবেন।

    এছাড়া পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) ৯ জন ফেডারেল মন্ত্রী, দুইজন প্রতিমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টা থাকবেন।

    মন্ত্রিসভার বাকি সদস্যদের মধ্যে জেইউআইএফ থেকে চারজন, এমকিউএম-পাকিস্তান থেকে দুজন, জেডব্লিউপি, বিএপি ও পিএমএল-কিউ থেকে একজন করে মন্ত্রী হবেন।

    সূত্র : জিও নিউজ

শপথ নিল পাকিস্তানের নতুন মন্ত্রিসভা

আরো ফটো অ্যালবাম

আরও দেখুন